চট্টগ্রাম, , বৃহস্পতিবার, ২৯ জুলাই ২০২১

রাউজানে আবারো বাল্য বিয়ে বন্ধ করলেন নির্বাহী অফিসার

প্রকাশ: ২০১৭-১১-১৮ ০৪:৪৬:৩২ || আপডেট: ২০১৭-১১-১৮ ০৫:০৪:১৪

সিটিজি নিউজ ডেস্ক : নির্বাহী অফিসার শামীম হোসেন রেজার হস্তক্ষেপে আবারো রাউজানে বন্ধ হল বাল্যবিবাহ। বিগত কয়েক মাস ধরেই একের পর এক বাল্যবিবাহ বন্ধ করে তাক লাগিয়ে দিয়েছেন এ সরকারি কর্মকর্তা। এমনকি বরপক্ষ এবং কনেপক্ষকে নিয়ে তিনি কাউন্সেলিং করে যাচ্ছেন বাল্য বিবাহের কুফল সম্পর্কে। যার পরিপ্রেক্ষিতে দেখা গেছে, বাল্য বিবাহের শিকার মেয়েরা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ে গিয়ে নিজেদের বিয়ে বন্ধ করার মত দুঃসাহস দেখিয়েছে।

জানা যায়, শুক্রবার, (১৭ নভেম্বর) দিনগত রাত সাড়ে ১২ টার দিকে একটি বাল্য বিয়ে বন্ধ করে দেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার শামীম হোসেন রেজা। বাল্য বিবাহের শিকার মেয়েটি চিকদাইর ইউনিয়নের উত্তর পাঠান পাড়া, ৯নং ওয়ার্ডের মৃত নজু মিয়ার মেয়ে রুবা আকতার (১৬)। তার সাথে চট্টগ্রাম নগরীর পাঁচলাইশ এলাকার এরশাদের সাথে বিবাহ ঠিক হয়। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে উপজেলা নির্বাহী অফিসার শামীম হোসেন রেজা বিবাহ অনুষ্ঠানে গিয়ে বিয়ে বন্ধ করে দেন এবং এখন আর বিয়ে দিবে না বলে মুচলেকা কনের অভিভাবকদের কাছ থেকে মুচলেকা নেন। মেয়েটির আর্থিক অবস্থা বিবেচনা করে নির্বাহী অফিসার যাবতীয় দায়িত্বও নেন। নির্বাহী অফিসারের উপস্থিতি জানতে পেরে বরপক্ষ আর বিয়েতে আসেনি বলে জানা যায়।
এ বিষয়ে জানতে চাইলে উপজেলা নির্বাহী অফিসার শামীম হোসেন রেজা সিপ্লাসকে বলেন, আমি আমার রাউজানে কোন বাল্য বিবাহ হতে দেব না। বাল্য বিয়ে নিয়ে আমি এবং প্রশাসন কঠোর অবস্থানে আছি। যেকোন মূল্য আমরা বাল্য বিয়ে বন্ধ করতে সর্বদা প্রস্থুত আছি।
উল্লেখ্য. গত ৯ নভেম্বর নিজের বাল্য বিয়ে বন্ধে করতে স্বহস্তে লিখিত আবেদন নিয়ে দশম শ্রেণী পড়ুয়া শিক্ষার্থী মায়া ছুটে যান উপজেলা সদরে নির্বাহী অফিসারের কার্যালয়ে। মেয়েটির বাবা আবুল বশর বাবুল প্রবাসে থাকেন। দশম শ্রেণী পড়ুয়া মেয়েকে লেখাপড়ার পাঠ চুকিয়ে এক ধর্ণাঢ্য প্রবাসী পাত্রের সাথে স্কুল পড়ুয়া সন্তানের বিয়ে ঠিক করেছিল মেয়েটির মা রাশেদা আকতার। বিয়ের কথা জেনেই নিজের হাতে লেখা একটি আবেদনপত্র নিয়ে মেয়েটি স্কুল থেকে সোজা চলে গেল রাউজান উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ে। মেয়েটির স্বহস্তে লেখা আবেদনপত্রটি পাঠ করে সাথে সাথেই মেয়েটিকে বিয়ে বন্ধের আশ্বাস প্রদান করে তড়িৎ বিবাহ বন্ধের পদক্ষেপ গ্রহণ করেন তিনি।

1st Image

ট্যাগ :