চট্টগ্রাম, , বুধবার, ২৩ জুন ২০২১

উন্নয়ন মেলা শুরু বৃহস্পতিবার

প্রকাশ: ২০১৮-০১-১০ ১৩:২৩:৩৮ || আপডেট: ২০১৮-০১-১০ ১৩:২৩:৫০

সিটিজি নিউজ ডেস্ক:
প্রকাশ: ২০১৮-০১-১০//১৯:১৪:১১

 

সরকারি-বেসরকারি ও আধাসরকারি সংস্থার উন্নয়নের চিত্র তুলে ধরে দেশের উন্নয়ন কর্মকাণ্ডের সঙ্গে জনগণকে সম্পৃক্ত করতে রাজধানীতে বৃহস্পতিবার থেকে শুরু হচ্ছে তিন দিনব্যাপী উন্নয়ন মেলা ২০১৮

ওইদিন সকাল ১০টায় গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে এ মেলার উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

মেলাপ্রাঙ্গণ রাজধানীর জাতীয় শিল্পকলা একাডেমি চত্বরে বুধবার এক সংবাদ সম্মেলনে উন্নয়ন মেলার সার্বিক দিক তুলে ধরেন ঢাকা জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ সালাহউদ্দিন।

তিনি বলেন, “২০২১ সালের মধ্যে ‘ক্ষুধা ও দারিদ্র্যমুক্ত বাংলাদেশ’ এবং ২০৪১ সালের মধ্যে ‘উন্নত বাংলাদেশ’ গঠনে সরকার বিভিন্ন উন্নয়ন কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে। সেগুলো জনগণকে অবহিত করতে এবং তার সাথে জনগণকে একাত্ম করতেই আমাদের এ আয়োজন।”

দেশের সব মন্ত্রণালয়, সেনা, নৌ ও বিমানবাহিনী এবং পুলিশ-আনসারসহ বিভিন্ন সরকারি, আধা সরকারি ও বেসরকারি সংস্থা এ মেলায় অংশ নেবে বলে জানান জেলা প্রশাসক।

“বিভিন্ন ডিপার্টমেন্টগুলো তাদের নিজ নিজ কার্যক্রম জনগণের সামনে উপস্থাপন করবে। এতে জনগণ অবহিত হতে পারবেন এবং এ কাজের সাথে একাত্মতা প্রকাশ করতে পারবেন।“

ঢাকা জেলা প্রশাসনের আয়োজনে অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া এ মেলায় বিভিন্ন বিভাগের ৯০টিরও বেশি স্টল থাকবে।

সরকারি সংস্থাগুলো তাদের বিভিন্ন সেবা মেলা থেকে সরাসরি দর্শনার্থীদের দেবে। এছাড়া আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে দেশের মুক্তিযুদ্ধ ও আর্থ-সামাজিক উন্নয়নের বিভিন্ন দিক তুলে ধরা হবে।

জেলা প্রশাসক বলেন, “আমরা যে সেবাটি আমাদের অফিস থেকে দিয়ে থাকি, সেটা এখানে বসেই আমরা দিতে চাই। প্রতিটি বিভাগ যে সেবাগুলো দিয়ে থাকে তা তাৎক্ষণিকভাবে এ মেলা থেকে পাওয়া যাবে।”

সংবাদ সম্মেলন থেকে জানানো হয়, মেলার শুরুর দিন বৃহস্পতিবার সকাল ৮টায় সরকারি-বেসরকারি সংস্থা ও স্কুলশিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণে অফিসার্স ক্লাব থেকে জাতীয় শিল্পকলা একাডেমি পর্যন্ত বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রার আয়োজন থাকবে। এরপর সকাল ১০টায় ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী এ মেলার উদ্বোধন করবেন।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে সমাজকল্যাণ মন্ত্রী রাশেদ খান মেননের উপস্থিত থাকার কথা রয়েছে।

প্রথম দিন দুপুর সাড়ে ১২টা থেকে বিকাল ৩টা পর্যন্ত সরকারি দপ্তরের উন্নয়নমূলক কার্যক্রমের ওপর ভিডিও প্রদর্শনী তুলে ধরা হবে।

এরপর বিকাল ৩টায় ‘ডিজিটাল বাংলাদেশ ও উন্নয়নের অগ্রযাত্রা’ শীর্ষক যে আলোচনা সভা হবে, তাতে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের মহাপরিচালক (প্রশাসন) কবির বিন আনোয়ার প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন বলে কথা রয়েছে।

একইদিন সন্ধ্যা ৬টা থেকে শুরু হবে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।

মেলার দ্বিতীয় দিন শুক্রবার সকাল ৯টা থেকে ১০টা পর্যন্ত বিভিন্ন দপ্তরের উন্নয়নমূলক কার্যক্রমের ওপর ভিডিও চিত্র জায়েন্ট স্ক্রিনে প্রদর্শন করা হবে।

সকাল ১০টা থেকে বেলা সাড়ে ১২টা পর্যন্ত অনুষ্ঠিত হবে ‘এমডিজি অর্জন ও এসডিজি অর্জনের পথে বাংলাদেশ’ শীর্ষক সেমিনার। সেমিনারে অতিথি হিসেবে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের মুখ্য সমন্বয়ক (এসডিজি) মো. আবুল কালাম আজাদ উপস্থিত থাকবেন। এছাড়া বিকাল ৩টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত চলবে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।

মেলার শেষ দিন শনিবার সকাল ৯টা থেকে ১০টা পর্যন্ত জেলা পর্যায়ের সব দপ্তরের বিভিন্ন সেবার তথ্য প্রদর্শন করা হবে। সকাল ১০টায় থাকবে ‘বঙ্গবন্ধুর উন্নয়ন দর্শন ও আজকের বাংলাদেশ’ ‍শিরোনামের আলোচনা সভা, যাতে অতিথি হিসেবে প্রধানমন্ত্রীর রাজনৈতিক উপদেষ্টা এইচ টি ইমাম, বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর ফরাসউদ্দিন আহমেদ এবং বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক শামসুজ্জামান খানের উপস্থিত থাকার কথা রয়েছে।

এদিন বেলা ১২টা থেকে বিকাল ৩টা পর্যন্ত স্কুলের শিক্ষার্থীদের বিজ্ঞানভিত্তিক প্রকল্পের প্রদর্শনী ও কুইজ প্রতিযোগিতা হবে। বিকাল ৩টা থেকে সাড়ে ৫টা পর্যন্ত হবে এ উন্নয়ন মেলার সমাপনী ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান।

সমাপনী অনুষ্ঠানে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামালের প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকার কথা রয়েছে। সন্ধ্যা ৬টায় সাংস্কুতিক অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে শেষ হবে তিন দিনব্যাপী উন্নয়ন মেলা।

 

ট্যাগ :