চট্টগ্রাম, , মঙ্গলবার, ২০ অক্টোবর ২০২০

বায়েজিদের অজ্ঞাতনামা গলিত লাশের পরিচয় সনাক্ত, হত্যাকারী গ্রেফতার

প্রকাশ: ২০১৯-০৫-২২ ১২:৪৭:১০ || আপডেট: ২০১৯-০৫-২২ ১২:৪৭:১০

নয়ন: ১৩ মে, সোমবার বায়েজিদ বোস্তামী থানাধীন আমিন জুট মিলের উত্তর গেইট সংলগ্ন মৃধাপাড়া হতে উদ্ধারকৃত অজ্ঞাতনামা অর্ধ-গলিত মহিলার লাশের পরিচয় সনাক্ত করেছে বায়েজিদ বোস্তামী থানা পুলিশ। সেই সাথে হত্যাকারী মোঃ নেজাম উদ্দিন (২৯) কে গ্রফতার করে পুলিশ।

জানা যায়, ১৩ মে, সোমবার আমিন জুট মিলের উত্তর গেইট সংলগ্ন মৃধাপাড়া হতে উদ্ধারকৃত অজ্ঞাতনামা লাশের সূত্র ধরে উপ-পুলিশ কমিশনার (উত্তর) বিজয় বসাক এর সার্বিক তত্ত্বাবধানে সিনিয়র সহকারী পুলিশ কমিশনার (বায়েজিদ বোস্তামী জোন) পরিত্রান তালুকদার এর সহযোগিতায় এবং বায়েজিদ বোস্তামী থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ আতাউর রহমান খন্দকার এর দিক নির্দেশনায় পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) প্রিটন সরকার এর নেতৃত্বে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই(নিরস্ত্র) মোহাম্মদ হোসাইন গত ১৯ মে, রবিবার সন্ধ্যা ০৬:৪৫ মিনিটে ডবলমুরিং থানাধীন মুহুরি পাড়া এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে হত্যাকারী মোঃ নেজাম উদ্দিন (২৯) কে গ্রেফতার করেন। এসময় আসামীর বক্তব্য অনুসারে অজ্ঞাতনামা অর্ধ-গলিত লাশটি রেবেকা সোলতানা মনি (২৫) এর বলে জানা যায়।

ধৃত আসামীকে জিজ্ঞাসাবাদে সে হত্যাকান্ডে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে এবং তার স্বীকারোক্তি মতে ভিকটিমের ব্যবহৃত মোবাইল সেট ও ভিকটিমের জামা-কাপড় আসামীর হেফাজত হতে উদ্ধার করা হয়।

জিজ্ঞাসাবাদে হত্যার কারণ হিসেবে জানা যায়, পতিতালয়ে (ঘটনাস্থলে) পতিতা, খদ্দের মোঃ নেজাম উদ্দিন (২৯) ও দালালের মধ্যে যৌনকর্মের উপার্জিত টাকা-পয়সা নিয়ে ত্রিমুখী বিরোধের জের ধরে দালালের পরিকল্পনায় খদ্দের মোঃ নেজাম উদ্দিন (২৯) ভিকটিম রেবেকা সোলতানা মনি(২৫) কে দুই হাত দিয়ে গলা টিপে এবং গলায় ওড়না পেঁচিয়ে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে।

অভিযান শেষে পতিতা খদ্দের মোঃ নেজাম উদ্দিন (২৯) কে গ্রেফতার পূর্বক পুলিশ প্রহরায় বিজ্ঞ আদালতে উপস্থাপন করলে আসামী মোঃ নেজাম উদ্দিন (২৯) হত্যাকান্ডের সাথে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে বিজ্ঞ আদালতে ফৌঃ কাঃ বিঃ আইনের ১৬৪ ধারা মোতাবেক স্বীকারোক্তি মূলক জবানবন্দি প্রদান করে।

উক্ত ঘটনায় বায়েজিদ বোস্তামী থানায় মামলা রুজু করা হয়।

ট্যাগ :