চট্টগ্রাম, , রোববার, ২৫ অক্টোবর ২০২০

মাছ ধরা নিষেধাজ্ঞার প্রতিবাদে চট্টগ্রামে সড়ক অবরোধ

প্রকাশ: ২০১৯-০৬-১১ ১৬:০৭:৪৫ || আপডেট: ২০১৯-০৬-১১ ১৬:০৭:৪৫

নয়ন: সরকার ঘোষিত ৬৫ দিন সাগরে মাছ ধরার উপর নিষেধাজ্ঞার প্রতিবাদে এবার চট্টগ্রামে সড়ক অবরোধ করেছে মাছ বিক্রেতা ও নৌযান মালিকরা। ১১ জুন মঙ্গলবার চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কের শাহ আমানত সেতুর মুখে এই অবরোধ কর্মসূচি পালন করে তারা।

প্রায় ১০০ মাছ ব্যবসায়ী ও বোট মালিক সোনালী যান্ত্রিক মৎসজীবি সমিতি ও সামুদ্রিক মৎস আহরণকারী বোট মালিক সমিতির ব্যানারে সকাল ১০ টায় শাহ আমানত সেতু মুখে উক্ত অবরোধে অংশ নেয়।

এ সময় বিক্ষোভের কারণে চট্টগ্রাম কক্সবাজার মহাসড়কে যানচলাচল বন্ধ হয়ে পড়ে। সেতুর উপর তৈরি হয় গাড়ির দীর্ঘ সারি। পরে বাকলিয়া থানা পুলিশের হস্তক্ষেপে অবরোধ প্রত্যাহার করে নিলেও এর পরেও ঘন্টা খানেক সড়কে জ্যাম ছিল।

বাকলিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা নেজাম উদ্দিন জানান, সাগরে ৬৫ দিন মাছ ধরায় সরকারি যে নিষেধাজ্ঞা তার প্রতিবাদে মাছ ব্যবসায়ীরা এই অবরোধ ডেকেছে। এ সময় অবরোধের কারণে যানবাহন চলাচলে কিছুটা বিঘ্ন ঘটে। পরে আমারা তাদের বুঝিয়ে রাস্তা থেকে অবরোধ প্রত্যাহার করিয়েছি।

আন্দোলনকারীদের একজন বলেন, আমরা যারা সাগরের মাছ ধরে জীবিকা নির্বাহ করি ৬৫ দিন মাছ না ধরলে আমরা কিভাবে বাঁচবো? আমাদেরতো অন্য কোন উপার্জনের রাস্তা নেই। তাই বাধ্য হয়েই আমাদের রাস্তায় নামতে হচ্ছে।

এর আগে গত রবিবার ৯ জুন সকাল ১০ টায় সীতাকুন্ড উপজেলার সলিমপুর ইউনিয়নের বাংলা বাজার এলাকায় ৪০ জেলে পল্লীর কয়েক হাজার জেলে একই দাবিতে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক অবরোধ করেছিল। এ সময় অবরোধের খবর পেয়ে সীতাকুণ্ডের সাংসদ দিদারুল আলম, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মিল্টন রায়, বাংলাদেশ হিন্দু,বৌদ্ধ,খিষ্টান কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক এড.রানা দাশ গুপ্ত, এএসপি সার্কেল সীতাকুণ্ড শম্পা রানী সাহা ও উত্তরজেলা পূজা উৎযাপন পরিষদ সভাপতি শ্যামল পালিতসহ স্থানীয় জনপ্রতিনিধির অনুরোধে প্রায় দুই ঘন্টা পর দুপুর ১২ টায় অবরোধ তুলে নেয় জেলেরা।

ট্যাগ :