চট্টগ্রাম, , রোববার, ১ আগস্ট ২০২১

সবার পরামর্শে চট্টগ্রামকে মডেল শহর হিসেবে গড়ে তুলবো: রেজাউল করিম চৌধুরী

প্রকাশ: ২০২১-০২-১৫ ২০:০৭:১৮ || আপডেট: ২০২১-০২-১৫ ২০:০৭:১৮

নিজস্ব প্রতিবেদক: চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের (চসিক) নব নির্বাচিত মেয়র বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব এম. রেজাউল করিম চৌধুরী বলেছেন, তার কার্যকাল পাঁচ বছরে চট্টগ্রাম আদর্শ শহরের মডেল হিসেবে দাঁড়াবে। এ বিষয়ে কারো পরামর্শ নিতে সংকীর্ণতা নেই বলে উল্লেখ করেন তিনি ।

সোমবার ১৫ ফেব্রুয়ারি সকালে ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে চসিকের দায়িত্ব গ্রহণ উপলক্ষে আয়োজিত সুধী সমাবেশে নতুন মেয়র এ কথা বলেন।

রেজাউল করিম বলেন, তার কথা ইশতেহারে বলে দিয়েছেন। অনেকে মনে করে, চট্টগ্রাম শুধু মেয়রের। তিনি সেই পুরনো ধারণা ভেঙে দিতে চান। এ চট্টগ্রামে অনেক জ্ঞানী, সাংবাদিক, শিল্পী, বুদ্ধিজীবী, বিশেষজ্ঞ আছেন। তাদের মেধা তিনি কাজে লাগাতে চান। রাস্তার যানজট থেকে বিভিন্ন সমস্যা মেয়রের ওপর এসে পড়ে। এ শহর আমার আপনার সবার। তাই সবার সঙ্গে পরামর্শ করতে চান, মেধা কাজে লাগাতে চান। চট্টগ্রামকে পরিকল্পিতভাবে গড়ে তুলতে চান। কারণ ব্যক্তির চিন্তা চেতনায় ভুল থাকতে পারে। সামষ্টিক চিন্তায় ভুল হওয়ার সম্ভাবনা নেই বলে মন্তব্য করেন তিনি।

মেয়র বলেন, আমি শুধু মুখপাত্র, প্রতিনিধি। ভোটের জন্য দুয়ারে দুয়ারে গেছেন ৷ পাঁচ বছরও সবার সঙ্গে পরামর্শ করে এগিয়ে যাবেন। তিনি ব্যবসায়ী থেকে শুরু করে সব শ্রেণি পেশার সবার সহযোগিতা কামনা করেন। তার পরিষ্কার কথা হচ্ছে, যে সেবা সংস্থা গাফিলতি করবে তাদের জবাবদিহি করতে হবে। অনেক সমম্বয় সভা হয়েছে, কিন্তু কার্যকর সেবা পায়নি। মেয়রের নির্বাহী ক্ষমতা থাকা উচিত। জনভোগান্তি যেমন কমবে টাকারও অপচয় হবে না বলে উল্লেখ করেন তিনি।

তিনি বলেন, জননেত্রী শেখ হাসিনা নিজ হাতে চট্টগ্রামের উন্নয়নভার নিয়েছেন। টানেল, এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে, বঙ্গবন্ধু শিল্পনগর, কক্সবাজার পর্যন্ত রেললাইন হচ্ছে। আমি জননেত্রীর প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাই। জনগণ জননেত্রীর উন্নয়নের ওপর আস্থা রেখেছেন বলে নৌকাকে জয়ী করেছেন। চট্টগ্রামের ইতিহাস ঐতিহ্য ধারণ করে এগিয়ে যেতে হবে। সফলতা আমাদের আসবে। চট্টগ্রাম আদর্শ শহরের মডেল হিসেবে দাঁড়াবে।

তিনি বলেন, প্রথমে মশা নিয়ন্ত্রণে কাজ করবেন । বর্জ্য ব্যবস্থাপনা শৃঙ্খলায় আনবেন। মানুষ শান্তি চায়। ১০০ দিনে সব রাস্তা হয়ে যাবে তা আবেগের কথা। যান চলাচলের উপযুক্ত করার চেষ্টা করবেন। যে কোনো মূল্যে খাল উদ্ধার করবেন। পাঁচ বছরে শহর জলাবদ্ধতামুক্ত হবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

সুধী সমাবেশে শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল,হুইপ সামশুল হক চৌধুরী,সংসদ সদস্য মোছলেম উদ্দিন আহমেদ, সংসদ সদস্য নজরুল ইসলাম চৌধুরী, চসিকের বিদায়ী প্রশাসক খোরশেদ আলম সুজন, চসিকের সাবেক মেয়র মাহমুদুল ইসলাম চৌধুরী, চট্টগ্রাম জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এম এ সালাম, সিডিএ’র সাবেক চেয়ারম্যান আবদুচ ছালাম, স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব হেলালুদ্দীন আহমেদ, মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মোজাফফর আহমদে, চবি’র সাবেক উপাচার্য ইফতেখার উদ্দিন চৌধুরী, বিএমএম নেতা শেখ শফিউল আজম, আইইবি’র সভাপতি প্রকৌশলী প্রবীর কুমার সেন, চসিকের কাউন্সিলর সাইয়েদ গোলাম হায়দার মিন্টু, জাসদ নেতা জসিম উদ্দিন বাবুল, চট্টগ্রাম চেম্বারের সভাপতি মাহবুবুল আলম, নগর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মাহতাব উদ্দিন চৌধুরী নগর মহিলা আওয়ামী লীগ সভাপতি হাসিনা মহিউদ্দিন, প্রকৌশলী মো. হারুন, চুয়েট উপাচার্য ড. রফিকুল আলম, চট্টগ্রাম ওয়াসার ব্যবস্থাপনা পরিাচলক মো. ফজলুল্লাহ, চট্টগ্রাম শিক্ষাবোর্ডের চেয়ারম্যান প্রদীপ চক্রবর্তী, সিডিএ’র চেয়ারম্যান জহিরুল আলম দোভাষ, দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মফিজুর রহমান বক্তব্য রাখেন।

ট্যাগ :