চট্টগ্রাম, , রোববার, ১ আগস্ট ২০২১

‘আওলিয়ায়ে কেরামের আদর্শ পারে ছাত্র-যুবসমাজকে মুক্তি দিতে’

প্রকাশ: ২০২১-০৩-১৩ ১৫:১০:৪৫ || আপডেট: ২০২১-০৩-১৩ ১৫:১০:৪৫

সিটিজি নিউজ: ইসলামের মধ্যে পরিপূর্ণ রূপে প্রবেশ করতে আওলিয়া কেরামের পথ অনুসরণ করতে হবে। এর মধ্যে প্রকৃতপক্ষে যুবসমাজ মুক্তি পেতে পারে। নৈতিকতা চর্চা বিকল্প নেই। মানবজীবনের অন্যতম মহৎগুণ হচ্ছে রাসুল (দ.)’র প্রতি ভালবাসা। এই গুণ অর্জনের চেষ্টা ও অনুশীলন ছাত্র-যুবসমাজকে মর্যাদা ও গৌরবের শ্রেষ্ঠতম স্থানে পৌঁছে দিতে পারে। প্রকৃত আউলিয়াকেরাম ও হক্কানী পীর মাশায়েখগণই সেই পথেই আজীবন কাজ করে থাকেন। তাই আজকের সমাজ থেকে বিদ্যমান হিংসা-বিদ্ধেষ, খুন রাহাজানী থেকে মুক্তি পেতে রাসুল (দ.) ও আউলিয়া কেরামের জীবনাদর্শ অনুশীলন অপরিহার্য।

শুক্রবার ১২ মার্চ বিকালে রাউজান উত্তর সর্তা খতমে গাউছিয়া পরিচালনা পরিষদ এর আয়োজনে দরগাহ্ বাজারস্থ পুর্ব আস্তানা শরীফ ময়দানে পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী(দ.) ও পবিত্র ফাতেহা ইয়াজদাহুম উপলক্ষে ১২তম বিশাল সুন্নী কনফারেন্সে বক্তারা এসব কথা বলেন।

কনফারেন্সে সভাপতিত্ব করেন চট্টগ্রাম জামেয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া আলীয়ার শায়খুল হাদীস হযরতুলহাজ্ব আল্লামা হাফেজ সোলায়মান আনসারী (মু.জি.আ)। উদ্বোধনী বক্তব্য রাখেন ওরশ পরিচালনা কমিটির সভাপতি আলহাজ্ব মুহাম্মদ হাবিবুর রহমান। প্রধান অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম জামেয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া আলীয়ার আরবি প্রভাষক হযরতুলহাজ্ব আল্লামা আবুল আসাদ মুহাম্মদ জোবাইর রজভী (মু.জি.আ)।

খতমে গাউছিয়া পরিচালনা পরিষদ পুর্ব আস্তানার উপদেষ্টা মাওলানা মুহাম্মদ আবদুল্লাহ আল মামুনের সঞ্চালনায় প্রধান বক্তা ছিলেন ফটিকছড়ি শামসুল উলুম গাউছিয়া সুন্নিয়া মাদ্রাসার উপাধ্যক্ষ ও দরগাহ বাজার জামে মসজিদের খতিব আল্লামা সেলিম উদ্দিন রেজভী (মু.জি.আ)। বিশেষ বক্তা ছিলেন ফটিকছড়ি আজাদী বাজার আজিজিয়া হাশেমিয়া নূরীয়া মাদ্রাসার সুপার মাওলানা মহিউদ্দিন আলকাদেরী।

উপস্থিত ছিলেন ওরশ পরিচালনা কমিটির উপদেষ্টা সোলাইমান মাষ্টার মাইজভান্ডারী, কামাল উদ্দিন, আবুল কালাম, শাজাহান, ওরশ পরিচালনা কমিটির সদস্য তৌফিকুল হোসাইন, মাওলানা হাসান আলী, মুহাম্মদ নাসির উদ্দীন, মুহাম্মদ ইউছুফ, মুহাম্মদ শাহাজান, মুহাম্মদ সাহাবু, মুহাম্মদ মুনছুর, খতমে গাউসিয়া পরিচালনা পরিষদের সাবেক সভাপতি মাসুদ পারভেজ, সদস্য আমান উল্লাহ, মুহাম্মদ বাদশা, মুহাম্মদ আহমদ উল্লাহ, মুহাম্মদ জানি আলম, মুহাম্মদ জিসান, মুহাম্মদ রনি প্রমুখ।

মিলাদ কিয়াম পরিচালনা করেন মাওলানা শহিদুল আলম ভান্ডারী। পরে আখেরী মোনাজাত ও তাবরুক বিতরণ করা হয়।

ট্যাগ :