চট্টগ্রাম, , শুক্রবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২০

চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় কারাগারে শীর্ষ সন্ত্রাসী অমিত মুহুরী খুন, চমেকে ভাঙচুর

প্রকাশ: ২০১৯-০৫-৩০ ১১:৫৮:২৬ || আপডেট: ২০১৯-০৫-৩০ ১১:৫৮:২৬

নয়ন: চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় কারাগারে বন্দি থাকা অবস্থায় শীর্ষ সন্ত্রাসী অমিত মুহুরী খুন হয়েছেন। ২৯ মে, বুধবার রাতে কারাগারের ভেতরে এ ঘটনা ঘটে বলে জানা যায়।

রাত সাড়ে ১২ টার দিকে অমিত মুহুরীকে মাথায় ও শরীরের বিভিন্নস্থানে গুরুতর জখম অবস্থায় চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালের জরুরী বিভাগে নিয়ে আসে কারারক্ষীরা। জরুরি বিভাগের কর্তব্যরত চিকিৎসক তাঁকে ২৮ নং ওয়ার্ডে পাঠিয়ে দেন। পরে রাত ১টার দিকে তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন চিকিৎসক

চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় কারাগারের জেলার নাছির আহমেদ বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, কারাগারের ৩২ নম্বর সেলে রিপন নাথ নামের এক বন্দীর কথা কাটাকাটি হয় অমিতের। এক পর্যায়ে রিপন নাথ তার মাথায় ইট দিয়ে আঘাত করলে প্রচুর রক্তক্ষরণ হয়। পরে তাকে চমেক হাসপাতালে নেয়া হলে দায়িত্বরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

এদিকে এই ঘটনায় চমেক হাসপাতালের ২৮ নাম্বার ওয়ার্ডে হামলা চালিয়েছে একদল যুবক। বুধবার রাত ২ টার কিছু সময় পরে চমেক হাসপাতালের ২৮ নং নিউরোসার্জারী বিভাগে হামলা চালায় তারা। এসময় হামলাকারীরা নিউরোসার্জারী বিভাগের কেসি গেইট ভেঙ্গে ফেলে।

বিষয়টি নিশ্চিত করে চমেক হাসপাতাল পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ জহিরুল হক ভূঁইয়া বলেন, রাত দুটার দিকে অতর্কিত কিছু যুবক ২৮ নং ওয়ার্ডে হামলা করে। এসময় তারা এই ওয়ার্ডের কেসি গেইট ভেঙ্গে ফেলে। এছাড়া হাসপাতালে ব্যাপক ভাংচুর চালায়।

ঘটনা সামাল দিতে চমেক হাসপাতালে সিএমপির দুই শতাধিক পুলিশ সদস্য পৌঁছানোর কথাও নিশ্চিত করেন জহিরুল হক ভূঁইয়া। তবে হামলাকারীদের পরিচয় কি এই ব্যাপারে কোন তথ্য জানাতে পারেননি তিনি।

পুলিশ জানায়, অমিতের বিরুদ্ধে হত্যা, অস্ত্র ও চাঁদাবাজির ১৫টি মামলা রয়েছে। রেলওয়ে পূর্বাঞ্চল এর কোটি টাকার দরপত্র নিয়ে জোড়া খুনের মামলার আসামিও তিনি।

এর আগে ২০১৭ সালের ১৩ আগস্ট চট্টগ্রাম নগরের এনায়েতবাজার এলাকার রানীরদিঘি থেকে একটি ড্রাম উদ্ধার করে পুলিশ। প্রথমে বোমা রয়েছে ভাবা হলেও ড্রাম কেটে ভেতর থেকে লাশ উদ্ধার করা হয়। লাশ গলে যাওয়ায় তখন পরিচয় বের করা যায়নি। পরে এ ঘটনার তদন্ত করতে গিয়ে ৩১ আগস্ট ইমাম হোসেন ও শফিকুর রহমান নামের দুজনকে গ্রেফতার করে পুলিশ। জিজ্ঞাসাবাদে তারা পুলিশকে জানান, ড্রামের ভেতরে পাওয়া লাশটি অমিতের বন্ধু নগর যুবলীগের কর্মী ইমরানুল করিমের। ৯ আগস্ট নগরের নন্দনকানন হরিশ দত্ত লেনের নিজের বাসায় ইমরানুলকে ডেকে নিয়ে হত্যা করে অমিত।

এ ঘটনায় ২০১৭ সালের ২ সেপ্টেম্বর অমিতকে কুমিল্লা থেকে গ্রেফতার করে গোয়েন্দা পুলিশ।

ট্যাগ :