চট্টগ্রাম, , শনিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২০

টেকনাফে বন্দুকযুদ্ধে মাদক ব্যবসায়ী নিহত

প্রকাশ: ২০১৯-০৬-১৫ ১২:১৮:১৬ || আপডেট: ২০১৯-০৬-১৫ ১২:১৮:১৬

টেকনাফ প্রতিনিধি: টেকনাফের হোয়াইক্যং ইউনিয়নের দৈংগাকাটা এলাকায় পুলিশের সাথে বন্দুকযুদ্ধে মো. রাসেল মাহামুদ (৩৬) নামক এক মাদক ব্যবসায়ী নিহত হয়েছে। ১৫ জুন, শনিবার দিবাগত রাত সাড়ে ১২টার সময় টেকনাফের হোয়াইক্যং দৈংগাকাটা এলাকার আমির হামজার বাড়ীর সামনে উজাইঅং চাকমার পাহাড়ের পাদদেশে এ ঘটনা ঘটে।

এসময় পুলিশের তিন সদস্য আহত হয়। তারা হলেন, এসআই বোরহান উদ্দিন ভূঁইয়া, কনস্টেবল হাবিব হোসেন ও সজীব সরকার।

নিহত মাদক ব্যবসায়ী মো. রাসেল মাহামুদ (৩৬) নারায়নগঞ্জ জেলার উত্তর লক্ষনঘোনা এলাকার ফয়েজ আহাম্মদের ছেলে।

টেকনাফ মডেল থানার ওসি প্রদীপ কুমার দাশ বলেন, গত রাতে থানা পুলিশের একটিদল টেকনাফের হোয়াইক্যং দৈংগাকাটা এলাকার বহু মামলার পলাতক আসামী আমির হামজার বাড়ির সামনে বাউিজাইঅং চাকমার পাহাড়ের পাদদেশে অভিযানে যায়। এসময় পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে অস্ত্রধারী দৃষ্কৃতিকারীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছুড়তে থাকে। তাৎক্ষণিক তার (ওসি প্রদীপ কুমার দাশ) নির্দেশে নিজেদের জীবন সরকারী সম্পত্তি রক্ষার্থে পুলিশ ৩৮ রাউন্ড গুলি করে। গোলাগুলির শব্দ শুনে ঘটনাস্থলে স্থানীয় লোকজন এগিয়ে আসতে থাকলে তারা (পুলিশ) গুলি করা বন্ধ করেন এবং ঘটনাস্থল হতে অস্ত্রধারী দৃষ্কৃতিকারীরা গুলি করতে করতে দ্রুত অন্ধকার পাহাড়ের জঙ্গলের দিকে পালিয়ে যায়।

পরবর্তীতে স্থানীয় জনসাধারণের উপস্থিতিতে ঘটনাস্থল থেকে দৃষ্কৃতিকারীদের ছোঁড়া গুলিতে এক মাদক ব্যবসায়ীকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় উদ্ধার করে পুলিশ। পরবর্তীতে তার দেহ তল্লাশি করে তার শার্টের বুক পকেটে তার ছবি সম্বলিত একটি জাতীয় পরিচয়পত্রে তার পরিচয় পাওয়া যায়।

তিনি আরো বলেন, নিহত মাদক ব্যবসায়ী মো. রাসেল মাহামুদ টেকনাফের আমির হামজার কাছ থেকে ইয়াবা কিনতে আসছে বলে জানায় এবং ঘটনাস্থলের আশপাশ এলাকায় ব্যাপক তল্লাশী করে আসামীদের বিক্ষিপ্তভাবে ফেলে যাওয়া ৫ হাজার ইয়াবা, একটি দেশীয় তৈরী এলজি ৫ রাউন্ড শর্টগানের তাজা কার্তুজ এবং ৯ রাউন্ড কার্তুজের খোসা জব্দ করা হয়।

ইয়াবা ব্যবসায়ীরা পালিয়ে গেলে ঘটনাস্থল থেকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় রাসেলকে উদ্ধার করে টেকনাফ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসলে জরুরী বিভাগের কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য কক্সবাজার হাসপাতালে প্রেরণ করা হলে নেওয়ার পথে সে মারা যায়। লাশটি ময়নাতদরে জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানোর হয়েছে।

নিহত ব্যক্তি একজন অস্ত্রধারী ও তালিকাভুক্ত একজন মাদক ব্যবসায়ী। তার বিরুদ্ধে মাদক, অস্ত্রসহ একাধিক মামলা রয়েছে।

ট্যাগ :