চট্টগ্রাম, , বৃহস্পতিবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০

ওসি মোয়াজ্জেম গ্রেফতার

প্রকাশ: ২০১৯-০৬-১৬ ১৮:২২:০২ || আপডেট: ২০১৯-০৬-১৬ ১৮:২২:০২

 নয়ন: ফেনীর সোনাগাজী থানার সাবেক ওসি ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের পরোয়ানাভুক্ত আসামি মোয়াজ্জেম হোসেনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। পরোয়ানা জারির ২০ দিন পার হওয়ার পর বহু আলোচনা-সমালোচনার পর রবিবার (১৬ জুন) রাজধানীর শাহবাগ এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

ওসি মোয়াজ্জেমের গ্রেফতারের বিষয়টি গণমাধ্যমকে নিশ্চিত করেছেন পুলিশ সদর দফতরের জনসংযোগ বিভাগের এআইজি (মিডিয়া) সোহেল রানা। তিনি বলেন, সোনাগাজী থানার সাবেক ওসি মোয়াজ্জেমকে শাহবাগ থেকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এখন তাকে আদালতে পাঠানোর প্রক্রিয়া চলছে। আইন অনুযায়ী তার ব্যাপারে পরবর্তী ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এর আগে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল জানিয়েছিলেন, ওসি মোয়াজ্জেম হোসেন দেশেই আছেন। তার দেশত্যাগের সব পথ বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। যে কোনো মুহূর্তে তিনি গ্রেফতার হবেন।

এদিকে নুসরাত হত্যার এই আলোচিত মামলার অন্যতম আসামি মোয়াজ্জেম হোসেনের গ্রেফতারে স্বস্তি প্রকাশ করেছেন ব্যারিস্টার সুমন। সাথে সাথে তিনি ধন্যবাদ জানিয়েছেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও পুলিশ প্রশাসনকে। তিনি মোয়াজ্জেম হোসেনের গ্রেফতারের বিষয়ে আদালতে রিট আবেদন করেছিলেন।

গত ১৫ এপ্রিল সাইবার আদালতে এ আবেদন করেছিলেন তিনি। আদালতে করা রিট আবেদনে বলা হয়েছিলো, সোনাগাজী ইসলামিয়া ফাজিল মাদরাসার ছাত্রী নুসরাত জাহান রাফির মৃত্যুর পর মোয়াজ্জেমের বিরুদ্ধে বেশ কিছু অভিযোগ উঠেছে।

পরবর্তীতে পিবিআই তদন্তে ওসি মোয়াজ্জেমকে দোষী সাব্যস্থ করার পর ব্যারিস্টার সুমন বলেছিলেন, মোয়াজ্জেমের নৈতিক অধিকার নেই পুলিশ ডিপার্টমেন্টে থাকার।

উল্লেখ্য, মাদরাসাছাত্রী নুসরাত জাহানকে ৬ এপ্রিল পুড়িয়ে হত্যার চেষ্টা করা হয়। এর কিছুদিন আগে মাদরাসার অধ্যক্ষ সিরাজ উদ দৌলার বিরুদ্ধে শ্লীলতাহানির অভিযোগ জানাতে সোনাগাজী থানায় যান নুসরাত। থানার তৎকালীন ওসি মোয়াজ্জেম হোসেন সে সময় নুসরাতকে আপত্তিকর প্রশ্ন করে বিব্রত করেন এবং তা ভিডিও করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেন। ওই ঘটনায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা হলে আদালতের নির্দেশে সেটি তদন্ত করে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)।

পিবিআই ২৭ মে আদালতে অভিযোগপত্র জমা দিলে ওই দিনই গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি হয়। পরোয়ানা জারির দুইদিন পর মোয়াজ্জেম হোসেন হাইকোর্টে জামিন আবেদন করেন।

ট্যাগ :